অভাব-অনাটনের মধ্যেও এসএসসিতে এ প্লাস লাভ

মুরাদ হোসেন (মাগুরা) থেকে : মাগুরার মহম্মদপুরে দিনমুজুর পিতার মুখ উজ্জল করেছে তার একমাত্র মেয়ে রহিমা খাতুন। রহিমা এবছর এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিয়ে কমার্স গ্রæপ থেকে এ প্লাস পেয়েছে। অভাব-অনটনের মধ্যেও রহিমার এই সাফল্যে খুব খুশি তার পরিবার, পাড়া-প্রতিবেশী ও আত্মীয়-স্বজন।

 

ঐতিহ্যবাহী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সরকারি আর এস কে এইচ মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে এবছর মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে এ প্লাস পেয়েছে রহিমা। সে উপজেলা সদরের জাঙ্গালিয়া গ্রামের বাসিন্দা দিনমুজুর মোঃ মিজান শেখ ও গৃহিনী মোছাঃ মনোয়ারা বেগমের একমাত্র মেয়ে।

 

পরিবার সুত্রে জানা যায়, এক ছেলে ও এক মেয়ের মধ্যে রহিমা ছোট। মিজান ও তার স্ত্রী লেখাপড়া জানেন না। অভাবি সংসারের চাহিদা মেটাতে রাজমিস্ত্রির জোগালে, মাটি কাটা ও ভ্যান চালানোসহ নানা কাজ কর্ম করতে হয় মিজানকে। তাদের কপালে লেখা পড়া না জোটলেও ছেলে- মেয়েকে একটু মানুষের মতো মানুষ করতে অক্রান্ত পরিশ্রম করে মিজান ও তার স্ত্রী মনোয়ারা বেগম।

 

আর এই কঠোর পরিশ্রমের ফলে মিজানের একমাত্র ছেলে উমর আলী ঢাকা কলেজে সমাজ বিজ্ঞান বিভাগের অনার্স দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র এবং মেয়ে রহিমা এবছর এসএসসিতে কমার্স গ্রæপ থেকে জিপিএ ৫ পেয়েছে। রহিমা খাতুন তার এই ফলাফলের জন্য বাবা-মা, বড়ভাই ও শিক্ষকমন্ডলীর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছে। সে ভবিষ্যতে নিজেকে একজন বিসিএস ক্যাডার হিসেবে গড়ে তুলে দেশের অসহায় মানুষের সেবা করার প্রত্যায় ব্যক্ত করে সকলের কাছে দোয়া প্রত্যাশা করেছে।

 

মিজান ও মনোয়ারা মেয়ের এই সাফলতার ধারাবাহিকতা রক্ষায় মহান আল্লাহর দরবারে শুকরিয়া জানিয়ে বলেন, শিক্ষকদের সহযোগিতায় আমাগের মনি অনেক ভালো ফলাফল করছে এতে আমরা খুব খুশি। শিক্ষক মন্ডলীসহ সকলের আন্তরিক দোয়া ও ভালোবাসায় সে যেন একজন আদর্শবান মানুষ হিসেবে গড়ে উঠতে পারে বিনয়ের সাথে এই কামনা করি।

SHARE