পাইকগাছার কপিলমুনিতে রাধা শ্রীনিবাস ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে শীত বস্ত্র বিতরণ

পাইকগাছা(খুলনা) প্রতিনিধি।। পাইকগাছার কপিলমুনিতে রাধা শ্রীনিবাস ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে শীত বস্ত্র বিতরণ করা হয়েছে। শনিবার সকাল ১১টায় রাধা শ্রীনিবাস ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে শীত বস্ত্র বিতরণ উপলক্ষ্যে কপিলমুনি মেহেরুন্নেচ্ছা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় মাঠ প্রাঙ্গণে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

 

 

কপিলমুনি ইউপি চেয়ারম্যান কওছার আলী জোয়ার্দ্দারের সভাপত্বিতে ও সাংবাদিক মুস্তাফিজুর রহমান পারভেজের পরিচালনায় শীত বস্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব তপন কান্তি ঘোষ।

 

 

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা নিবার্হী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মমজাত বেগম, কপিলমুনি ইউননিয়ন আঃলীগের সভাপতি যুগোল কিশোর দে, কপিলমুনি মেহেরুন্নেচ্ছা বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রহিমা আক্তার শম্পা, কপিলমুনি প্রেসক্লাবের সহ-সভাপতি মুন্সী রেজাউল করিম মহব্বত, জি এম হেদায়েত আলী টুকু, শিক্ষক স্বপন কান্তি ঘোষ, সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রাজ্জাক রাজু, কপিলমুনি জনতা ব্যাংক শাখার সাবেক ম্যানেজার শেখ আব্দুর রশীদ, আমিনুল ইসলাম বজলু, এইচ এম শফিউল ইসলাম, সরদার মোজাফ্ফর হোসেন, রফিকুল ইসলাম খান, প্রকাশ ঘোষ বিধান, পাইকগাছা থানা অফিসার ইনচার্জ জিয়াউর রহমান, কপিলমুনি ইউপি সচিব মোঃ আব্দুল গণি গাজী, অবসর প্রাপ্ত সচিব নারায়ণ চন্দ্র দাশ, কপিলমুনি ফাঁড়ি পুলিশের ইনচার্জ (পুলিশ পরিদর্শক) সঞ্জয় দাশ, এস আই আব্দুল আলীম, এএসআই শরিফুল ইসলাম, কপিলমুনি ইউপি সদস্য ও প্যানেল চেয়ারম্যান ইউনুছ আলী মোড়ল, রবিন অধিকারী, অজিয়ার মোড়ল, হরিঢালী ইউপি সদস্য শংকর বিশ্বাস, সংরক্ষিত ইউপি সদস্য কাকলী বিশ্বাসসহ এলাকার গণ্যমান্য ব্যাক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন। এছাড়া সচিব মহাদয় বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের আওয়াতাধীন কপিলমুনি বাজারের টিসিবির ডিলার সাদিয়া এন্টারপ্রাইজের নিত্যপণ্য তৈল, চিনি ও ডাউল ভোক্তা পর্যায়ে বিতরণ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন।

 

 

এসময় পাইকগাছা উপজেলার টিসিবির ডিলার মোনওয়ার হুসাইন রিংকু, মোঃ গোলাম রাব্বানী ও ভূদেব চন্দ্র মন্ডল পৃথক পৃথক ভাবে সচিব মহাদয়কে ফুলের শুভেচ্ছা জানান। এরপর কপিলমুনি হাসপাতালের কাজের উন্নয়ন, কপিলমুনি জাফর আওলীয়া ফাজেল ডিগ্রী মাদরাসা পরিদর্শন করেন।

 

পরিদর্শন পর্বে তিনি বলেন, যেহেতু এ এলাকায় আমার জন্ম। তাই সংগত কারণেই এলাকার উন্নয়ন ও আমার এলাকাকে সুন্দর করে সাজানোর দায়িত্ব বোধ থেকে সরে যেতে পারিনা। আমার এলাকার সর্বশ্রেণীর মানুষ সুন্দর ও সুশৃঙ্খলভাবে জীবনযাপন করবে এটাই আমার আশা। তাই এলাকার সকলকে সাথে নিয়ে আমার সীমাবদ্ধতার মধ্যে থেকেই এলাকার উন্নয়ন করে যেতে চাই। পরিশেষে শনিবার কপিলমুনি মেহেরুন্নেচ্ছা বালিকা বিদ্যালয়ের
শিক্ষার্থীদের সাথে কুশল বিনিময় করে তাদের উদ্দেশ্যে দিক নির্দেশনা মূলক বক্তব্যে প্রদান করেন।