কলারোয়ায় মাদক বেচাকেনার নিরাপদ স্থান “রাজধানী” লাঙ্গলঝাড়া

কলারোয়া (সাতক্ষীরা) প্রতিনিধিঃ সাতক্ষীরার কলারোয়ার লাঙ্গলঝাড়া মাদক বেচাকেনার নিরাপদ স্থান।
এই লাঙ্গলঝাড়ায় এখন মাদকের রাজধানী নামে পরিচিতি লাভ করেছে। বিভিন্ন স্থান থেকে মাদকসেবীরা এই স্থানে এসে ফেনসিডিল, গাজা, ইয়াবা, সেবন করতে আসে। তারা নিরাপদে সেবন করে আর পাইকারী দরে মাদক নিয়ে চলে যায়।

 

 

 

অবশ্যই মাঝে মধ্যে থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে তাদের মধ্যে দুই একজনকে ধরে জেল হাজতে প্রেরণ করে থাকে। মাদক ব্যবসায়ীরা সহযেই আদালত থেকে জামিন নিয়ে এসে তাদের ব্যবসা আবারও শুরু করে। বর্তমানে লাঙ্গলঝাড়া বাজারে মাদক ব্যবসায় ইন্তাজ, লাল্টু, টাক বাবু, হাসান ওরফে দয়াল, শফিকুল, আক্তার, হাসেম,
রবিউল, রফিকুল এর নিয়ন্ত্রণে রয়েছে মাদক ব্যবসা। তারা সকাল থেকে রাত ১২টা পর্যন্ত লাঙ্গলঝাড়া ইউনিয়ন পরিষদ মোড়, ফজুর মোড়, গাজীর পুকুর কান্দা, জোলাপাড়ার মোড়, ভোগার পুকুর মোড়ে দাড়ীয়ে দাড়ীতে ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে।

 

 

থানা পুলিশ বলছে-মাদক ব্যবসায়ীদে ধরে আদালতে পাঠানোর পরে তারা দুই এক সপ্তাহ’র মধ্যে জামিন পাচ্ছে। যে কারনে মাদক ব্যবসা বন্ধ করা যাচ্ছে না। এদিকে মাদক ব্যবসায়ী ইন্তাজ, টাকা বাবু, দয়াল বলছে-তারা এই টাকা কিছু সাংবাদিক নামধারী ব্যক্তি, পুলিশ ও নেতাদের মাসোহারা দিয়ে এই ব্যবসা চালাচ্ছি। তারা টাকাও নেয় আবারও খেয়ে যায়। টাকা দিতে দেরি হলে হুমকিও দেয়া হয়।

 

 

 

তারা আরো বলেন-ফেনসিডিলের দাম একটু বেশি হওয়ায় সেবনকারীর সংখ্য একটু কমে গেছে। এই রাজধানীতে কেশবপুর, পাইকগাছা, বাগআঁচড়া, শার্শা, নাভারন, সহ বিভিন্ন স্থান থেকে লোক আসে মাদক কিনতে আর সেবন করতে।

 

 

ফেনসিডিল সেবনের পরে এক চামচ দুধে ২০ চামচ চিনি মিশিয়ে চা খান তারা। আর এই লাঙ্গলঝাড়া বাজারে ৩/৪টি চায়ের দোকান আছে যা তারা ১০টাকা প্রতি কাপ হিসাবে বিক্রয় করে থাকেন মাদকসেবীদের কাছে। বর্তমানে এই লাঙ্গঝাড়া বাজারে অপরিচিত লোকের আনাগো বৃদ্ধি পেয়েছে।

SHARE