কেশবপুরের তানভীর ফেরদৌস জেলা পর্যায়ের বিজ্ঞান অলিম্পিয়াড প্রতিযোগিতায় প্রথম

কেশবপুর উপজেলার কেশবপুর সরকারি পাইলট উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির শিক্ষার্থী তানভীর ফেরদৌস ৪৩ তম জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সপ্তাহ ২০২২ এ বিজ্ঞান অলিম্পিয়াড প্রতিযোগিতায় যশোর জেলা পর্যায়ে জুনিয়র গ্রুপে প্রথম স্থান অধিকার করেছে।

 

এর আগে সে উপজেলা পর্যায়ে কেশবপুর উপজেলায় প্রথম স্থান অর্জন করে। সে যশোর জেলার কেশবপুর উপজেলার হাজী আব্দুল মোতালেব মহিলা কলেজের ইংরেজি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মোঃ আব্দুর রাজ্জাক ও কালিয়ারই এস.বি.এল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা শামীমা নাসরিন এর কনিষ্ঠ পুত্র। সে তার কৃতিত্বের জন্য পিতা-মাতা ও শিক্ষক-শিক্ষিকাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছে। মা-বাবা তার সাফল্যের এ ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখতে সকলের কাছে দোয়া ও আশীর্বাদ কামনা করেছেন।

 

 

সে ভবিষ্যতে চিকিৎসক হয়ে মানুষের সেবায় নিজেকে নিয়োজিত করতে চায়। তানভীর কপোতাক্ষ নিউজের ক্যাম্পাস (যবিপ্রবি) প্রতিনিধি রায়হান ফেরদৌসের ছোট ভাই। কপোতাক্ষ নিউজের সকল পাঠক, বিজ্ঞাপনদাতা ও শুভানুধ্যায়ীর কাছে ছোট ভাইয়ের উজ্জ্বল ভবিষ্যত কামনা করে তিনি দোয়া চেয়েছেন।

 

 

 

উল্লেখ্য, স্মার্ট ফোনে আসক্তি : পড়াশোনার ক্ষতি প্রতিপাদ্য কে সামনে রেখে ৪৩ তম জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সপ্তাহ ২০২২ খ্রি. বিজ্ঞান মেলা ও বিজ্ঞান অলিম্পিয়াড এ যশোরে জেলা পর্যায়ের প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয় গত মঙ্গলবার। আজ (২০ এপ্রিল ২০২২) যশোর জিলা স্কুল অডিটোরিয়ামে সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে সনদপত্র এবং পুরষ্কার বিতরণ করেন যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য, একুশে পদকপ্রাপ্ত বিজ্ঞানী অধ্যাপক ড. মোঃ আনোয়ার হোসেন। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন যশোরের জেলা প্রশাসক মোঃ তমিজুল ইসলাম খান।

 

 

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন যশোরের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) যশোর জনাব মোহাম্মদ মনোয়ার হোসেন। অনুষ্ঠানে সেমিনার পত্র উপস্থাপন করেন যশোরের ডেপুটি সিভিল সার্জন ডা . মো: নাজমুস সাদিক।

 

 

এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন জেলা শিক্ষা অফিসার জনাব এ কে এম গোলাম আযম, সহকারী জেলা শিক্ষা অফিসার জনাব মোঃ আব্বাস উদ্দিন, যশোর জিলা স্কুলের প্রধান শিক্ষক জনাব মোঃ শোয়াইব হোসেন সহ প্রমুখ। বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের পৃষ্ঠপোষকতায় জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘরের তত্ত্বাবধানে অনুষ্ঠানের আয়োজন করে যশোর জেলা প্রশাসন। সার্বিক সহযোগিতা করে যশোর জেলা শিক্ষা অফিস।

SHARE