লাশ উদ্ধার

শ্যামনগর (সাতক্ষীরা) প্রতিনিধিঃ শ্যামনগর পল্লী প্রাইভেট হাসপাতালে ৭ মাসের বাচ্চা অবৈধ গর্ভপাত ঘটানোর সময় সাবিনা খাতুন (২৭) ও তার শিশু বাচ্চার মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। সাবিনা উপজেলার পার্শ্বেখালী গ্রামের মৃত মোমিন আলীর কন্যা ও স্যালেন্ডারকৃত জাহাঙ্গীর ডাকাত এর স্ত্রী। শ্যামনগর থানা পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য সাতক্ষীরায় প্রেরণ করেছে। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত থানায় কোন মামলা হয়নি।

 

 

 

এলাকা সূত্রে জানা গেছে, সাবিনা খাতুনের সাথে দীর্ঘ কয়েক বছর পূর্বে স্যালেন্ডারকৃত জাহাঙ্গীর ডাকাত এর বিয়ে হয়। জাহাঙ্গীরের একটি কন্যা সন্তান রয়েছে। পরবর্তীতে সাবিনা জাহাঙ্গীরকে তালাক প্রদান করে। এরপর সাবিনা ঈশ্বরীপুর ইউনিয়নের একটি ছেলের সাথে দৈহিক প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলে। এক পর্যায়ে সাবিনা ১৩ মে (শুক্রবার) দিবাগত রাতে পল্লী প্রাইভেট হাসপাতালে অবৈধ গর্ভপাত ঘটানোর সময় সাবিনার মৃত্যু হয়।

 

 

এলাকাবাসী আরও জানায়, এ ঘটনায় সাবিনার মা ও বোনকে পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিয়ে গেছে।

 

 

শ্যামনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি তদন্ত হাওলাদার সানোয়ার হোসাইন মাসুমের সাধে মুঠোফোনে কথা হলে তিনি লাশ মর্গে প্রেরণের কথা স্বীকার করে বলেন, সাবিনার তালাকপ্রাপ্ত স্বামী জাহাঙ্গীর ৭ মাসের বাচ্চাটি তার বলে স্বীকার করে তিনি থানায় এসে বাদী হয়ে মামলা করবেন বলে জানায়। আর না করলে পুলিশ ব্যবস্থা নিবে।

 

 

এ বিষয়ে পল্লী প্রাইভেট হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের সাথে বার বার মোবাইলে যোগাযোগ করেও সংযোগ না পাওয়ায় কথা বলা সম্ভব হয়নি।

SHARE