পাইকগাছা (খুলনা) প্রতিনিধি।। পাইকগাছায় দুই ব্যক্তির বিরুদ্ধে ভিন্ন দাগ খতিয়ানের জমি জোরপূর্বক জবর দখলে রেখেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। নালিশী জমি নিয়ে হয়রানী হচ্ছেন জমি দাতা ও তার শরিকরা। এ নিয়ে দু’পক্ষের মধ্য পাল্টা-পাল্টি অভিযোগ ও মামলা হয়েছে।

 

 

প্রাপ্ত অভিযোগে জানাগেছে, পৌরসভার গোপালপুর গ্রামের মৃত্যু শের আলী গাজীর ছেলে নূর মোহাম্মদ গাজী ও উপজেলার লস্কর গ্রামের মোজাম সরদারের ছেলে সোলাইমান সরদার ২০২০ সালের ৪ নভেম্বর পৌরসভার ১নং ওয়ার্ড গোপালপুর গ্রামের মৃতু আরমান আলী সরদারের ছেলে আব্দুল আজিজ সরদারের নিকট থেকে ২৯৩৮ নং কোবলা দলিল মুলে গোপালপুর মৌজায় এসএ ৩৪৯ খতিয়ানের ১১৮২ দাগে মোট ১.৭০ একর জমির মধ্য থেকে .১৬৫০ একর জমি ক্রয় করেন। যার ডিপি নং ৭৪৭, বর্তমান দাগ ২৫৬৪। এদিকে নূর মোহাম্মদ সোলাইমান গং ক্রয়কৃত দাগ খতিয়ানের সম্পত্তি দখলে না গিয়ে গত ২ থেকে আড়াই মাস আগে তারা সিএস ৩১৯ ও এসএ ৩৮৯ খতিয়ানের ১২০১ দাগে শরিকদের জমি দখল পূর্বক বাড়ী-ঘর নির্মাণ করার চেষ্টা করে। যার ডিপি নং ৪৪৪, বর্তমান দাগ ২১৬১।

 

 

 

এ ঘটনায় গোপালপুর গ্রামের জজ আলী সরদারের ছেলে রুহুল আমিন সরদার বাদী হয়ে প্রতিপক্ষদের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ করে। থানা পুলিশ শালিশী বৈঠক করে যে সিদ্ধাÍ দেয় তা প্রতিপক্ষ না মানায় এবং রুহুল আমিন গংদের ওপর হামলা ও ক্ষতিসাধন করলে রুহুল আমিন বাদী হয়ে ১১/০৮/২০২২ তারিখ প্রতিপক্ষ আনারুল ইসলাম কিনা, নূরুজ্জামান গাজী, নূর মোহাম্মদ গাজী, সোলাইমান সরদার ও ফরিদা বেগমকে আসামী করে সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে সিআর ৮০৫/২২ নং মামলা করে। মামলায় বিজ্ঞ আদালত তদন্ত করে প্রতিবেদন দেওয়ার জন্য থানার ওসিকে নির্দেশ দেয়।

 

 

আদালতের নির্দেশনা অনুযায়ী মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই আনজির হোসেন মামলায় আনিত অভিযোগ
সঠিক মর্মে আদালতে প্রতিবেদন দাখিল করে। এ মামলায় ১নং আসামী আনারুল ইসলাম কিনা বর্তমানে জেল হাজতে  রয়েছে।

 

 

এদিকে প্রতিপক্ষ নূর মোহাম্মদ বাদী হয়ে আজিজ সরদার ও রুহুল আমিনকে বিবাদী করে ০৭/০৮/২০২২ তারিখে ভিন্ন দাগ-খতিয়ান উল্লেখ করে নির্বাহী আদালতে ১৪৪ ধারা মামলা করে। এরপর রুহুল আমিন বাদী হয়ে একই আদালতে প্রতিপক্ষ নূর মোহাম্মদ ও সোলাইমানকে বিবাদী করে ২৪/০৮/২০২২ তারিখ ৩৪১/২২ নং ১৪৪ ধারা মামলা করে।

 

 

সর্বশেষ গত শনিবার বিকালে রুহুল আমিন নিজের জমিতে যাওযার সময় প্রতিপক্ষদের বাড়ীর সামনে গেলে প্রতিপক্ষরা তাকে মারপিট করা সহ বিভিন্ন ধরণের হুমকি দেয়। এ ঘটনায় রুহুল আমিন বাদী হয়ে প্রতিপক্ষ নূর মোহাম্মদ, ফরিদা বেগম, রহিমা বেগম ও আব্দুল্লাহকে বিবাদী করে থানায় জিডি করে। যার নং- ৮৯০, তাং ১৭/০৯/২০২২ ইং।

 

 

এ ব্যাপারে জমিদাতা আব্দুল আজিজ সরদার জানান, আমি নির্দিষ্ট যে দাগ খতিয়ানে জমি রেজিস্ট্রী করে দিয়েছি সেখানে দখলে না গিয়ে প্রতিপক্ষ নূর মোহাম্মদ, সোলাইমান ভিন্ন দাগ খতিয়ানের জমি জোরপূর্বক দখলে রাখার চেষ্টা অব্যাহত রাখার পাশাপাশি মিথ্যা মামলা ও অভিযোগ দিয়ে আমাদের হয়রানী করে আসছে। রুহুল আমিন সরদার জানান, আমাদর দাবী প্রতিপক্ষরা আমাদের শরিকদের সম্পত্তি ছেড়ে দিয়ে তাদের ক্রয়কৃত দাগ খতিয়ানের জমি ভোগ-দখল করুক।

 

 

প্রতিপক্ষ নূর মোহাম্মদ জানান, জমিদাতা আব্দুল আজিজ এক স্থান দেখিয়ে অন্য দাগ খতিয়ানের জমি
রেজিস্ট্রি করে দিয়েছে। নালিশী জমির শাÍিপূর্ণ সমাধান চেয়েছেন ভুক্তভোগী আজিজ রুহুল আমিন গংরা।

SHARE