• বুধবার, ১৭ জুলাই ২০২৪, ০৬:৩৭

কাউকে আমি কষ্ট দিইনি: রাভিনা ট্যান্ডন

প্রতিনিধি: / ৭২ দেখেছেন:
পাবলিশ: বুধবার, ২৭ মার্চ, ২০২৪

বিনোদন: নব্বই দশকের শুরুতে চলচ্চিত্রে পা রাখেন বলিউড অভিনেত্রী রাভিনা ট্যান্ডন। নানা অভিজ্ঞতার মধ্য দিয়ে পার করেছেন দীর্ঘ অভিনয় ক্যারিয়ার। অভিজ্ঞতার আলোকে কথা বলতে গিয়ে বলিউড নায়কদের নিয়ে বিস্ফোরক মন্তব্য করতেও দেখা গেছে এই অভিনেত্রীকে। স¤প্রতি রাজশ্রীকে সাক্ষাৎকার দিয়েছেন রাভিনা ট্যান্ডন। এ আলাপচারিতায় রাভিনা ট্যান্ডন বলেন, ‘কিছু মানুষ নিরাপত্তাহীনতায় ভুগেন এবং তারা অন্যের সফলতা সহ্য করতে পারেন না। তারা অন্যদের নিচে নামানোর রাস্তা খুঁজেন। আর এসব ব্যক্তিরা বিভিন্নভাবে আপনার কাছে আসবেন। সেটা প্রেমিক-প্রেমিকার মাধ্যমে কাছে আসতে পারে।’ ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে রাজনীতির শিকার হয়েছেন রাভিনা। তা উল্লেখ করে এই অভিনেত্রী বলেন, ‘বিনা বাক্যে মানতে হবে আমাদের ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রি প্রতিযোগিতাপূর্ণ। কোন ইন্ডাস্ট্রিতে প্রতিযোগিতা নেই? পৃথিবীর সব রাজনীতি এবং করপোরেট জগতে একই চিত্র বিদ্যমান। পার্থক্য শুধু ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রি সম্পর্কে লেখালেখি হয়। কারণ এ অঙ্গনের মানুষজন বিখ্যাত আর তাদের নিয়ে তৈরি গুঞ্জন মানুষ গুরুত্ব নিয়ে পড়েন। নিঃসন্দেহে এখানকার মানুষ রাজনীতি করে, এটা আমার সঙ্গেও হয়েছে।’ রাভিনা ইচ্ছাকৃতভাবে কারো ক্যারিয়ারের ক্ষতি করেননি। যদি অনিচ্ছাকৃতভাবে এমন কিছু ঘটে থাকে তবে তার জন্য ক্ষমা চাইতে প্রস্তুত তিনি। এ বিষয়ে রাভিনা বলেন, ‘আমার জন্য যদি এরকম কিছু ঘটে থাকে। তবে আমি ক্ষমা চাইতে প্রস্তুত। বাবা আমাকে বলতেন, একটি বাচ্চা যখন হাঁটতে শেখে, তখন সে উঠে দাঁড়ানোর আগেই পড়ে যায়। কিন্তু সর্বশেষ সেই বাচ্চা মাথা উঁচু করে দাঁড়া এবং হাঁটে। এটি আমাকে শিক্ষা দিয়েছে। সুতরাং আমি কাউকে কষ্ট দিইনি, কাউকে সিনেমা থেকে বাদ দিইনি, নতুনদের সঙ্গে কাজ করতেও আমার কোনো সমস্যা নেই। কারণ আমিও এক সময় নতুন ছিলাম।’ ১৯৯১ সালে হিন্দি ভাষার ‘পাথর কে ফুল’ সিনেমার মাধ্যমে অভিনয় জীবন শুরু করেন। এ সিনেমায় অভিনয়ের জন্য ফিল্মফেয়ার পুরস্কার লাভ করেন তিনি। নব্বই দশকে বেশ কয়েকটি বাণিজ্যিকভাবে সফল চলচ্চিত্র উপহার দেন রাভিনা। যার মধ্যে রয়েছে ‘দিলওয়ালে’ (১৯৯৪), ‘মোহরা’ (১৯৯৪), ‘খিলাড়িয়োঁ কা খিলাড়ি’ (১৯৯৬), ‘জিদ্দি’ (১৯৯৭) প্রভৃতি।


এই বিভাগের আরো খবর
https://www.kaabait.com