• শনিবার, ১৩ জুলাই ২০২৪, ০৮:৩৯
সর্বশেষ :

মিঠুন চক্রবর্তী হাসপাতাল ছাড়লেন

প্রতিনিধি: / ১২৩ দেখেছেন:
পাবলিশ: মঙ্গলবার, ১৩ ফেব্রুয়ারী, ২০২৪

বিনোদন: হাসপাতাল ছাড়লেন অভিনেতা মিঠুন চক্রবর্তী। শনিবার ব্রেন স্ট্রোকের পর হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন তিনি। গত সোমবার সেখান থেকেই ছাড়া পেলেন অভিনেতা। অভিনতো মিঠুন হাসপাতাল থেকে বেরিয়েই সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন বলে আনন্দবাজার পত্রিকা জানিয়েছে। কলকাতার বাইপাসের ধারে একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়েছিল অভিনেতাকে। পথিকৃৎ বসুর সিনেমা ‘শাস্ত্রী’র শুটিং করার সময় তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন। হাসপাতাল ছেড়েই মিঠুন জানালেন, আসন্ন লোকসভা ভোটে তিনি লড়ছেন না। কেন, তা-ও জানিয়েছেন। তার কথায়, ‘লড়ছি না। আমি যদি প্রার্থী হই, তা হলে ৪২টি আসনে কী হবে?’ তিনি যে রাজ্য জুড়ে প্রচার করে বেড়াবেন, সে কথা স্পষ্ট করে দিয়েছেন। গত রোববার মিঠুনকে হাসপাতালে দেখে বেরিয়ে রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী বলেছিলেন, ‘এবার ভোটে মিঠুনকে আমরা পুরোদস্তুর প্রচারে ব্যবহার করব।’ গত সোমবার সেই একই সুরে কথা বললেন মিঠুন। তিনি বলেন, ‘১ মার্চ থেকে থেকে লাগাতার প্রচার করব। বিজেপির হয়েই করব। আমি আর কোন পার্টি করি? আমাদের রাজ্যের বাইরে অন্য রাজ্যে যদি ডাকে সেখানেও যাব।’

 

ছবি-০৬
উত্তপ্ত সময়ে সরকারি পদ ছাড়লেন মিমি
এফএনএস বিনোদন: জন্মদিনের উৎসবের মধ্যেই কলকাতার জনপ্রিয় অভিনেত্রী দিলেন আরেকটি খবর। তিনি সরকারি পদকে বিদায় জানালেন। লোকসভা ভোটের ঠিক আগে যাদবপুরের ‘জনপ্রতিনিধি’ রোগী কল্যাণ সমিতির চেয়ারপার্সনের পদ ছাড়লেন তিনি। ভারতের তৃণমূল কংগ্রেসের সংসদ সদস্য ও টালিউডের অভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তী সরকারি পদ থেকে নিজেকে সরিয়ে নিলেন। টালিউডের জনপ্রিয় অভিনেতা দেবের পথেই হাঁটলেন ভারতের তৃণমূল কংগ্রেসের সংসদ সদস্য ও টালিউডের অভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তী। জানা গেছে, নলমুড়ি গ্রামীণ হাসপাতাল ও জিরানগাছা বøক প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রের রোগী কল্যাণ সমিতির পদ ছাড়লেন মিমি। পদ ছাড়ার কারণ হিসেবে তিনি লিখেছেন- ২০১৯ থেকে ২৪ পর্যন্ত আমার সংসদ পদের মেয়াদ শেষ হয়ে যাচ্ছে। আপনাদের যে সমর্থন আমি পেয়েছি, তার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ। আমি চেয়ারপার্সন হিসেবে চিকিৎসক, নার্স এবং সর্বোপরি রোগীদের কল্যাণার্থে কাজ করার সর্বোচ্চ চেষ্টা করেছি। সন্দেশখালিতে যখন উত্তপ্ত রাজ্য, তার মাঝেই বড় সিদ্ধান্ত নায়িকার। নলমুড়ি আর জিরানগাছা বøক প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রের রোগী কল্যাণ সমিতির চেয়ারপার্সনে ছিলেন সাংসদ-নায়িকা মিমি। পদত্যাগপত্র পাঠিয়ে দিয়েছেন তিনি। ২০১৯ সালে তৃণমূলের হয়ে যাদবপুর থেকে বিপুল ভোটে জয়ী হয়েছিলেন মিমি। প্রায় ২ লক্ষ ২২ হাজার ৪৯৯ ভোটে জিতেছিলেন নায়িকা। কিন্তু মিমি সাংসদ হিসেবে পাঁচ বছরে কতটা সফল সেই নিয়ে বিতর্ক রয়েছে। প্রসঙ্গত, মিমিকে সর্বশেষ দেখা গেছে শিবপ্রসাদ-নন্দিতার ‘রক্তবীজ’ ছবিতে।


এই বিভাগের আরো খবর
https://www.kaabait.com