শ্যামনগর প্রেসক্লাবের সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় করলেন খলিলুল্লাহ ঝড়ু

এস এম মিজানুর রহমান শ্যামনগর (সাতক্ষীরা) প্রতিনিধিঃ জেলা পরিষদ নির্বাচন আগামী ১৭ অক্টোবর ২০২২ অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনকে সামনে রেখে শ্যামনগর উপজেলা প্রেসক্লাবের দু’তলা ভবনে ১৭ সেপ্টেম্বর বিকালে সাংবাদিকদের সাথে মত বিনিময় করেন জেলা পরিষদের স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী খলিলুল্লাহ ঝড়ু–।

 

 

 

এ সময় তার সাথে ছিলেন পারুলিয়ার বিশিষ্ট ব্যবসায়ী রফিকুল ইসলাম, শ্যামনগরের আবুল কাশেম গাইন ও মেম্বর দোলনা। বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও ঢাকাস্থ সাতক্ষীরা জেলা সমিতির সভাপতি ও জেলা যুব একাডেমির চেয়ারম্যান বিশিষ্ট সমাজ সেবক খলিলুল্লাহ ঝড়ু বলেন- জেলা পরিষদের সকল প্রকার আর্থিক সংশ্লিষ্ট কাজে স্বচ্ছতা নিশ্চিত করবো।

 

 

 

সুবিধা বঞ্চিত এলাকার জন্য বিভিন্ন প্রকল্প প্রণয়ন করে দেশীয় এবং আন্তর্জাতিক দাতা সংস্থার মাধ্যমে আর্থিক সহায়তা আনতে চেষ্টা করবো। জেলা পরিষদের জলাধার সমূহ সংস্কারের করে, পানি বিশুদ্ধকরণ করে পাইপ লাইনের মাধ্যমে সুপেয় খাওয়ার পানি সরবরাহ করার প্রকল্প গ্রহণ করবো।

 

 

 

প্রকল্প প্রনয়ন ও বাস্তবায়নে ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এবং সদস্য ভাইদের সংশ্লিষ্ট করে স্বচ্ছতা, জবাবদিহিমূলক এবং দুর্নীতি মুক্ত জেলা পরিষদ গঠন করার চেষ্টা করবো। অতীত -বর্তমান সময়ে সাতক্ষীরা জেলা পরিষদ ন্যায্য অধিকার থেকে মানুষ বঞ্চিত। তিনি আরও বলেন, পরিবর্তনের অঙ্গীকার নিয়ে আমি একজন সচেতন প্রগতিশীল ব্যক্তি হিসেবে সাতক্ষীরার জনগনের পাশে থাকতে চাই।

 

 

 

দীর্ঘদিন যাবৎ আত্ম মানবতার সেবা ও দুর্যোগকালে সাতক্ষীরার অবহেলিত জনগোষ্ঠীর পাশে থেকেছি আন্তরিকতার সাথে। অবহেলিত জনপদের সুবিধা বঞ্চিত যে যখন আমাকে স্মরণ করেছে আমি তার পাশে থেকে সহায় হয়েছি। আগামীতেও জনপ্রতিনিধিদের মূল্যবান ভোটে নির্বাচিত হতে পারলে আপনাদের সাথে নিয়ে দুর্ণীতি ও স্বজনপ্রীতি মুক্ত জেলা পরিষদ উপহার দিতে চাই। সরকারি সকল দান অনুদান ও প্রকল্পগুলো আলোচনার মাধ্যমে বন্টন করা হবে। ইতিপূর্বে জেলা পরিষদকে দুর্ণীতি ও স্বজনপ্রীতিতে পরিণত করেছিল।

 

 

 

 

বৈশ্বিক জলবায়ু পরিবর্তনের সংকটে প্রতি জেলার জন্য সময়োপযোগী সমস্যা সমাধানের বাস্তব ভিত্তিক পরিকল্পনা প্রণয়নের মাধ্যমে জেলার ২২ লক্ষ মানুষের সুপেয় পানি খাওয়ার ব্যবস্থা করা, গ্রামীন অবকাঠামো উন্নয়নে অংশীদার সমৃদ্ধ প্রকল্প বাস্তবায়নের অঙ্গীকার নিয়ে আগামী পাঁচ বছরের জন্য নির্বাচনী ইশতেহার প্রস্তুত করা, জেলায় অতীতের অসঙ্গতি ও পক্ষপাতমূলক প্রকল্প বরাদ্ধ না দিয়ে উন্নয়ন বঞ্চিত এলাকা চিহ্নিত করে বরাদ্ধ প্রদান করা এবং প্রভাবমুক্ত, দুর্ণীতিমুক্ত, জেলা পরিষদ গঠনের মাধ্যমে শতভাগ ইশতেহার বাস্তবায়নের জন্য সচেষ্ট থাকবো। মতবিনিময়ে ৮টি জেলার ২০১৮-২০১৯ থেকে ২০২১-২০২২ সালের জেলা পরিষদের বাজেটের বরাদ্ধ উঠিয়ে ধরেন। মত বিনিময়ের সময় শ্যামনগর প্রেসক্লাবের কর্তব্যরত সকল সাংবাদিকগণ উপস্থিত ছিলেন।

SHARE